বালিয়াকান্দিতে যুবককে আটকে রেখে অর্থ আদায়ের চেষ্টার অভিযোগ

0
21

সোমবার দুপুরে রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি বাজারে বাজার থেকে ধরে নিয়ে বাগানের মধ্যে আটকে রেখে মারপিট করে অর্থ আদায়ের চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ব্যাপারে মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার মহেশপুর গ্রামের কেসমত মন্ডলের ছেলে মোঃ আসাদ মন্ডল বাদী হয়ে বালিয়াকান্দি থানায় ৫জনের নাম উল্লেখ করাসহ অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করেছে।

অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার মহেশপুর গ্রামের কেসমত মন্ডলের ছেলে মোঃ আসাদ মন্ডল সোমবার ২টার দিকে তার ব্যবহৃত লাল রংয়ের পালসার নিয়ে বালিয়াকান্দি বাজারে টর্চ লাইট ও মোবাইল ফোন ক্রয় করার জন্য আসে। বালিয়াকান্দি বাজারের পারভেজ টেলিকমের দোকান থেকে ১২শত টাকা দিয়ে এল ২৫ মডেলের একটি মোবাইল সেট ক্রয় করে পাকা রাস্তার উপর আসলে অজ্ঞাতনামা ৩জন যুবক এসে কথা আছে বলে জোড়পুর্বক ধরে নিয়ে আমতলা বাজার এলাকার কেরানীর বাগান নামক স্থানে আটকে রাখে। সেখানে আরো ৭-৮জন অজ্ঞাতনামা যুবক এসে কিছু বুঝে উঠার আগেই কাঠের বাটাম দিয়ে এলোপাথারী ভাবে পিটিয়ে ও কিল, ঘুষি মেরে আহত করে।

তার ভাগ্নে সুমনের মোবাইল ফোনে বিষয়টি জানালে তার ভাগ্নে, ভাইসহ লোকজন বালিয়াকান্দি এলাকায় খোজাখুজি করতে থাকে। তার ভাগ্নের ফোনে ফোন দিয়ে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবী করে। তারা এখবর পেয়ে তার পকেটে থাকা ২৫ হাজার ১শত ৪০ টাকা নিয়ে নেয়। বিষয়টি কাউকে জানালে জীবনে শেষ করার হুমকি দেয়। পরে তার লোকজন তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বালিয়াকান্দি হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করে। মোবাইলের দোকানদার জিয়ার সাথে কথা বলে জানতে পারে বালিয়াকান্দি শেখপাড়ার রফিক শেখের ছেলে পাপ্পু শেখ, নান্নু খন্দকারের ছেলে গালিব, সাঈদ শেখের ছেলে আকরাম শেখ, রকিব শেখ, পশ্চিম বালিয়াকান্দি গ্রামের শামসুল হকের ছেলে আলী আজগর শেখসহ ৬-৭জন এ কাজ করেছে। পরে থানায় অভিযোগ দায়ের করে।


LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here