মীর মশাররফ হোসেনের ১৭০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে রাজবাড়ীতে নানা আয়োজন

0
226
SAMSUNG CAMERA PICTURES

সোহেল রানা ॥
বাংলা সাহিত্যের অন্যতম দিকপাল, ঊনবিংশ শতাব্দীর সর্বশ্রেষ্ঠ মুসলিম সাহিত্যিক, কালজয়ী উপন্যাস “বিষাদ সিন্ধু” রচয়িতা মীর মশাররফ হোসেনের ১৭০তম জন্মবার্ষিকী ১৩ নভেম্বর।

এ উপলক্ষে আগামী ১৪ নভেম্বর রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের পদমদী মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতি কেন্দ্রে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে বাংলা একাডেমি।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর এমপি।

মীর মশাররফ হোসেন ১৮৪৭ সালের ১৩ নভেম্বর কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলা লাহিনীপাড়া গ্রামের মাতুলালয়ে জন্ম গ্রহন করেন। তিনি ১৯১১ সালের ১৯ডিসেম্বর রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের পদমদী গ্রামে মৃত্যু বরন করেন। পদমদীতে তাকে সমাহিত করা হয়। সাহিত্যে ক্ষেত্রে মীর মশাররফ হোসেন উজ্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন। গল্প, উপন্যাস, নাটক, কবিতা, আত্মজীবনী, প্রবন্ধ ও ধর্ম বিষয়ক ৩৭টি বই রচনা করেছেন।

সাহিত্য রচনার পাশাপাশি কিছুদিন সাংবাদিকতাও করেছেন। মীর মশাররফ হোসেনের রচনা সমগ্রহের মধ্যে গৌরি সেতু, বসন্ত কুমারী, জমিদার দর্পন, সংগীত লহরী, উদাসীন পথিকের মনের কথা, মদিনার গৌরব, বিষাদ সিন্ধু, গো-জীবন, বেহুলা গীতাভিনয়, গাজী মিয়ার বোস্তানী, মৌলুদ শরীফ, মুসলমানের বাঙ্গালা শিক্ষা, বিবি খোদেজার বিবাহ, হযরত ওমরের ধর্মজীবন লাভ, হযরত বেলালের জীবনী, হযরত আমীর হামজার ধর্ম জীবন লাভ, মোসলেম বীরত্ব, এসলামের জয়, আমার জীবনী, বাজিমাত, হযরত ইউসোফ, খোতবা বা ঈদুল ফিতর, বিবি কুলসুম, ভাই ভাই এইতো চাই, ফাস কাগজ, একি!, টালা অভিনয়, পঞ্চনারী, প্রেম পারিজাত, বাধাখাতা, নিয়তী কি অবনতি, তহমিনা, গাজী মিয়ার গুলি ও বৃহৎ হীরক খনি উল্লেখযোগ্য।

মীর মশাররফ হোসেনের ১৭০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী ১৪ নভেম্বর রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের পদমদীস্থ মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতি কেন্দ্রে উদ্বোধন অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বাংলা একাডেমি।
বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান ইতিমধ্যেই ১৪ নভেম্বর জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠান সফল করতে পত্র দিয়েছেন।

এ দিনের কর্মসুচির মধ্যে সকাল সাড়ে ১০টায় আলোচনা অনুষ্ঠান। স্বাগত ভাষন দেবেন, বাংলা একাডেমির সচিব (অতিরিক্ত সচিব) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। বিশেষ অতিথি থাকবেন, রাজবাড়ী-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কাজী কেরামত আলী, রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ জিল্লুল হাকিম, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ ইব্রাহিম হোসেন খান, রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী, উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কালাম আজাদ। প্রবন্ধকার, নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য্য অধ্যাপক আব্দুল জলিল। আলোচক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষনা ইনস্টিটিউট, অধ্যাপক মাসুদুজ্জামান। সভাপতিত্ব করবেন, বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।

দ্বিতীয় অধিবেশন বিকাল ৪টায় আলোচনা অনুষ্ঠান। স্বাগত ভাষন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা। আলোচক, বালিয়াকান্দি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ও মীর মশাররফ হোসেন সাহিত্য পরিষদের সভাপতি বিনয় কুমার চক্রবর্তী, বালিয়াকান্দি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা। সভাপতিত্ব করবেন, রাজবাড়ী সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ফকীর আবদুর রশিদ। পরে সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here