1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:৫৮ পূর্বাহ্ন

শহীদ পরিবারের স্বীকৃতি চান শান্তি বাওয়ালী

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৭
  • ১২৭১ Time View

সোহেল রানা ॥
১৯৭১ সালের স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রান্তিক জনগোষ্টির রয়েছে অপরীসিম অবদান। স্বাধীনতা সংগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আহবানে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে বাঙালী। ৯মাসের রক্তক্ষয়ী সংগ্রামী যুদ্ধের পর ধর্মনিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে রুপ পায় বাংলাদেশ।

১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ত্রিশ লক্ষ শহীদ আর দুই লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন হয়। মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজবাড়ী জেলা সদরের বসন্তপুর ইউনিয়নের গাবলা গ্রামের মৃত বিদেশী বাওয়ালীর ছেলে মদন বাওয়ালীকে চোখের সামনে হত্যা করতে দেখে তার স্ত্রী শান্তি বাওয়ালী।

শান্তি বাওয়ালী জানান, ১৯৭১ সাল তখন ছিল জৈষ্ঠ্য মাসের কোন এক মঙ্গলবার সকাল নয়টার সময় তার স্বামী মদন বাওয়ালী সকালের নাস্তা করতে বসেছিল রান্না ঘরে। ঠিক ওই সময়ে এক দল পাকিস্তানি তাদের বাড়ির চার পাশ ঘিরে ফেলে, ঘর থেকে টেনে হিচরে বাহিরে নিয়ে আসে, উঠানে থাকা বাসের খুটির সাথে বেধে চালায় অমানুষিক নির্যাতন এরপর নিয়ে যায় পার্শ্ববর্তী দাস বাড়িতে নিয়ে গুলি করে হত্যা করে।

শান্তি বাওয়ালী আরো জানান, দুঃখের বিষয় স্বাধীনতার ৪৬ বছর পার হলেও আমার স্বামীর ব্যাপারে কোন সরকারী সংস্থা বা কেউ কোন খোঁজ খবর নেয়নি।

শান্তি বাওয়ালীর ছেলে রতন বাওয়ালী জানান, আমার বাবাকে ওরা নির্মম ভাবে হত্যা করেছে তখন আমার বয়স আট নয় বছর, মনে পরে বাবার চিৎকারের কথা। এতদিন হয়ে গেলেও কেউ আমাদের কোন খোঁজ খবর নেয়নি, এখন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দাবী আমার শহীদ বাবার নামটি ৭১ এর শহীদ তালিকায় অন্তভুর্ক্ত একজন মুক্তিযোদ্ধার সম মর্যাদায় বাষ্ট্রীয় সম্মান প্রদান করবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution