গোয়ালন্দে ওয়েস্কেলে অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় ড্রাইভারকে মারধর

0
162

কুদ্দুস আলম ॥
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে বিআইডাব্লিউটিসি ও বিআইডাব্লিইটিএ পরিচালিত ওয়েস্কেলের টোকেন রশিদ (টোল) নেওয়ার সময় নির্ধারিত টাকার চেয়ে অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় কর্তব্যরত আনছার ও ওয়েস্কেলের ওয়েসিটি অপারেটরের হাতে ট্রাক ড্রাইভার ও হেলপার মারপিটের শিকার হয়েছে।
১০ জানুয়ারি রাত ৮ ঘটিকার সময় ঝিনাইদাহ জেলার কোটচাঁদপুর থেকে কাঁচা পন্যবাহী ট্রাক ঢাকা যাওয়ার পথে গোয়ালন্দ ভুমি অফিস সংলগ্ন ওয়েস্কেলের কর্তব্যরত আনছার সদস্য মো. রানা হোসেন (৩০)সহ অন্যান্যদের হাতে সরকার নির্ধারিত টাকার চেয়ে অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ার কারনে ট্রাক (নং ঢাকা মেট্্েরা ২০-৫৩৮০) ড্রাইভার জাহাঙ্গীর আলম (৩৩) ও হেলপার আবু সাইদ ( ২৮) মারপিটের শিকার হয়েছেন। ট্রাকের হেলপারকে বিআইডাব্লিউটিসির অফিস রুমে আটক করে মারপিট করতে থাকে, হেলপারকে মারতে দেখে ট্রাক ড্রাইভার গাড়ি থেকে হেলপার কে উদ্ধার করতে আসলে তাকেও মারধর করেন। তাদের চিৎকারে অন্য ট্রাকের ড্্রাইভার হেলপার এগিয়ে এসে উদ্ধার করেন। এ সময় গাড়ি চলাচল না করায় সড়কে লম্বা সিরিয়াল পড়ে যায়। ওয়েস্কেলের পাশে অবস্থিত গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. রফিকুল ইসলাম এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রয়ণে আনে এবং আনছার সদস্য ওয়েসিটি অপারেটরের যথাযথ বিচারের আশ্বাসে ড্রাইভারা সড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক করে।
ট্রাকের হেলপার মো. আবু সাইদ বলেন , স্কেল রশিদ নেওয়ার জন্য কাউন্টারে যাই, সরকার নির্ধারিত ৭৫ টাকা টোল দেওয়ার পরে আনছার সদস্য অতিরিক্ত আরো ৫০ টাকা দাবী করে, এসময় অতিরিক্ত টাকা না দেওয়ায় আনছার সদস্য আমার স্কেল রশিদ দিতে অস্বীকার করেন। আমি স্কেল রশিদ চাইলে আনছার সদস্য আমাকে কিলঘুষি মারতে মারতে রুমের মধ্যে নিয়ে যায় এবং আমার ড্রাইভার এগিয়ে আসলে তাকেও মারপিট করেন। আমাদের চিৎকারে অন্য গাড়ির ড্রাইভার হেলপারা এসে আমাদের উদ্ধার করেন।
বিআইডাব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট শাখার সহ ব্যবস্থাপক মো. মাহাবুব হোসেন বলেন, ড্রাইভার হেলপারের গায়ে হাত দেওয়ার কারনে ওয়েসিটি অপারেটর ও আনছার সদস্য কে সাময়িকভাবে দায়িত্ব থেকে বিরত রাখা হয়েছে। বিষয় টি উদ্ধর্তন কতৃপক্ষকে জানানো হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয় হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here