গোয়ালন্দে সরকারী কর্মচারী মাটি ব্যবসায়ীর হাতে লাঞ্চিত

0
258

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে মো. ওয়াসিম নামের এক প্রভাবশালী মাটি ব্যবসায়ীর হাতে উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভিয়ার আশরাফুল ইসলামকে লাঞ্চিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় তাকে নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে হুমকী প্রদান করা হয়।
এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়ে সার্ভেয়ার আশরাফুল ইসলাম উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। তবে সার্ভেয়ার মাটি কাটা বন্ধ করতে যাওয়ার বিষয়ে তার অফিস প্রধান সহকারী কমিশনার (ভুমি)কে কিছুই জানান নি জানা গেছে।
অভিযোগে সার্ভেয়ার আশরাফুল বলেন, ভূমি খেঁকো ওয়াসিম দীর্ঘদিন ধরে ড্রেজার এবং এস্কেভেটর মেশিন দিয়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারী জায়গা হতে অবৈধভাবে মাটি কেটে ব্যবসা করে আসছে। এ বিষয়ে উপজেলা প্রশাসন হতে কয়েকবার নিষেধ করা হলেও সে অদৃশ্য মতাবলে মাটি কাটার ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে করে অনেক কৃষি ফসলী জমি নষ্ট হচ্ছে। সাধারণ মানুষ এ বিষয়ে একাধিক অভিযােগ দেয়ায় তিনি উপজেলা নির্বাহী আফিসারের মৌখিক নির্দেশে গত বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারী) দুইজন সহকারীকে নিয়ে উপজেলার উত্তর দৌলতদিয়া মৌজায় সরকারী জমি হতে মাটি কাটার স্থানে গিয়ে মাটি কাটা বন্ধ করে দেন।
এ সময় মাটি কাটার মূল হোতা গোয়ালন্দ পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মো. আব্দুল মজিদের ছেলে ওয়াসিম (৪৫) তাকে বিভিন্ন ভয়-ভীতি প্রদান করে এবং তাদের দু’জন সহযোগীকে নানা ধরনের হমকি দেয়। এর জের ধরে ওই দিনই পৌর জামতলা এলাকায় ওয়াসিম তাকে অতর্কিত ভাবে চর-থাপ্পর মারে।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত ওয়াসিমের মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয় নি।
এ বিষয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ রফিকুল ইসলাম জানান, সার্ভেয়ার সরাসরি আমার অফিসের কর্মচারী হলেও সে মাটি কাটা বন্ধ করতে যাওয়ার বিষয়ে আমাকে কিছুই জানায় নি। আমি বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।
গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আমিনুল ইসলাম বলেন, সার্ভেয়ার মাটি কাটা বন্ধ করতে যাওয়ার বিষয়ে আমাকেও সরাসরি কিছু জানায় নি। তবে এটা করার তার এখতিয়ার রয়েছে। ওয়াসিম যেটা করেছে তা গুরুতর অপরাধ। তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। আমরা তাকে খুঁজছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here