1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:০০ পূর্বাহ্ন
Title :
দৌলতদিয়া থেকে ৫১ হাজার টাকাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যানের উদ্যোগে ২ কিলোমিটার রাস্তা নির্মান কাজ শুরু গোয়ালন্দে দুই দিনব্যাপী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন ফের নারায়ণগঞ্জের মেয়র হলেন রাজবাড়ীর পুত্রবধু আইভী ১৬ দিন পর গোয়ালন্দে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে বই বিতরন শুরু দৌলতদিয়ায় নিখোঁজের ৩ মাস পর মামালা ॥ কথিত স্বামীসহ আসামি ৩ জন প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে উধাও আইনজীবী ॥ আদালতে মামলায় গ্রেপ্তারী পরোয়ানা বালিয়াকান্দিতে বাবার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ বালিয়াকান্দিতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু রাজবাড়ীতে নবাগত জেলা প্রশাসকের গনমাধ্যমকর্মীদের সাথে মতবিনিময়

বালিয়াকান্দিতে মোবাইল প্রতারনা ॥ আসমান থেকে জ্বীনের বাদশা বলছি…

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
  • ৪৮৭ Time View

হ্যালো স্যার আপনি কি শুনতে পাচ্ছেন, গ্রামীণ ফোনের লটারীতে আপনার একটি গাড়ী, ফাট, নগদ টাকা পেয়েছেন। আপনি খুব সৌভাগ্যেবান ব্যাক্তি, তাই আপনাকে এ পুরস্কার নিতে হলে এখনই এ নম্বরটিতে বিকাশের মাধ্যমে দাবীকৃত টাকা দিন। কাউকে বললে সে আপনাকে নিষেধ করবে। আবার কখনোও গভীর রাতে সুমধুর নারী ও পুরুষ কন্ঠে নানা ধর্মীয় ও স্বর্ণালংকার পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখানো হয়। আবার নারীরা প্রেমের অভিনয় করে হাতিয়ে নেয় অর্থ। এভাবেই গ্রামীণ, টেলিটক, বাংলালিংক, রবিসহ বিভিন্ন ধরনের মোবাইলের সিম ব্যবহার করে প্রতারনা করে আসছে নারী-পুরুষ। বর্তমান ডিজিটাল যুগে প্রতারনার কৌশলও পাল্টে যাচ্ছে। কখনো ইউএনও, ওসি, ডিসি, এস,আই, সরকারী উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, কখনো রোগীর আত্বীয়, ভুেল বিকাশে টাকা যাওয়া, স্বর্ণালংকারের লোক দেখিয়ে, লটারী পাওয়াসহ ফেইসবুক হ্যাক করে মানুষের সাথে প্রতারনা করে আসছে। আর এ প্রতারক চক্রের কৌশল দিন দিন পরিবর্তনও করছে। এটি কোন বাংলা সিনেমার বা কাল্পনিক গল্প নয়। নারী-পুরুষ সবাই রাতে অফিস করে থাকেন। আর এ প্রতারক চক্রের কৌশল দিন দিন পরিবর্তনও করছে। এ প্রতারনার করে অনেকেই ভ্যান চালক, নসিমন চালক, শ্রমজীবি, গার্মেন্সে চাকুরী, ভবঘুরে, সাধারণ ব্যবসায়ী কোটিপতির তালিকায় নাম লিখিয়েছে।

দারিদ্রতার কারণে ঘর জামাই থেকে ভ্যান চালিয়ে ও স্ত্রীকে এলজিইডির সড়ক রক্ষনাবেক্ষণ কাজের শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো। এরপরই টানাটানি আর অভাব অনটনে চলতে থাকে সংসার। ভ্যান চালিয়ে দু,বেলা দু,মুঠো খেয়ে পড়ে চলছিল রাতের দিনতিপাত করতো ৫ সদস্যের সংসার। এরই মাঝে পরিচয় ঘটে ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন গ্রামের বাসিন্ধা ও বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের বাকসাডাঙ্গী গ্রামের এক জামাইয়ের সাথে। তার হাত থেকেই হাতে খড়ি নেয় মোবাইল প্রতারনার নানা অপকৌশল। মাঠে জমি কেনার হিড়িক, খাওয়া-দাওয়া ও বাজার থেকে পাড়া-প্রতিবেশির সন্দেহ হয়। কারণ খুঁজতে থাকে কাজ না করেও এতো ভালো ভাবে জীবন যাপন কি করে সম্ভব। এ যেন আলাদিনের প্রদীপ পেয়েছে। টাকার গরমে কথাবার্তার স্টাইলও পরিবর্তন হয়েছে। মোবাইল প্রতারনার কাজ করতে গিয়ে ছেলে ইয়াবায় আসক্ত হয়ে পড়েছে। কারণ রাত জাগতে হয়, শরীর সতেজ রাখতে ইয়াবা সেবন তার নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে পড়ে। টাকা আয়ের কারণে বাবা-মা কেউ কিছু বলে না। ছেলে ইয়াবা সেবনের পাশাপাশি শুরু করে ইয়াবা বিক্রিও। তাতেও কম আয় কি? এরই মধ্যে কোটিপতিতে পরিনত হয়। কিন্তু বিধিবাম বালিয়াকান্দি থানা পুলিশ তার বাড়ীর ঘর থেকে শত পিছ ইয়াবা ট্যাবলেট, ৭-৮টি দামি মোবাইল সেট, শতাধিক বিভিন্ন কোম্পানীর মোবাইল সিম উদ্ধার করে। তাকেও আটক করে। এ মামলায় প্রায় ২ মাস জেল হাজতে থাকার পর জামিনে মুক্তি পেয়ে এখন পুনরায় ব্যবসা শুরু করেছে।
বাবা জনবিক্রি করে। কোন মতো খেয়ে না খেয়ে সংসার চালাতেন। ২ ছেলেকে মানুষ করার চেষ্টা করলেও লেখাপড়ায় বেশি দুর এগোতে পারেনি। কোন রকম নাম সহি করতে পারে। তাই ২ ছেলেকে জীবন-জীবিকা নির্বাহের জন্য ঢাকায় গামেন্সে চাকুরীর জন্য পাঠায়। সেখানে ৪-৫বছর গামেন্সে চাকুরী করে। ওয়েলকামপার্টির কলাকৌশল নিয়ে দু,ভাই শুরু করে মোবাইল প্রতারনার কাজ। সামান্য দু,বছর এ কাজে করে তার গ্রুপে জড়িয়ে নেয় প্রায় ডজন খানেক তরুনকে। অল্প কয়েকদিনেই কোটিপতির খাতায় নাম লিখায়। করেছে বাড়ী-গাড়ীসহ নগদ টাকার বিশাল অর্থ বৈভব।
বাজারের ব্যবসায়ী। ব্যবসা করে ভালোই চলছিল সংসার। পারিবারিক ও এলাকায় প্রভাব ভালোই ছিল। দু,টি ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে সুখেই ছিল সংসার। ছেলেদের মানুষ করার জন্য লেখাপড়ার মনোযোগের কমতি ছিল না। একটি ছেলে তার কর্মের কারণে চাকুরী করে। অন্য ছেলেটি লেখাপড়ায় বেশিদুর এগুতে পারেনি। গ্রামের ওয়েলকামপার্টির সদস্যদের সাথে চলাফেরা। প্রতারনার কাজটি ভালোভাবেই আয়ত্ত শুরু করে। প্রতিদিনই লক্ষ লক্ষ টাকা আয় হতে থাকে। প্রথম দিকে ছেলের এ অপকর্মের বিরোধিতা করলেও সর্বশেষ ছেলের অপকর্মের হাল ধরে বাবা নিজেই।
বাবা কষ্ট করে কোন মতো খেয়ে না খেয়ে সংসার চালাতেন। প্রথম স্ত্রীর সন্তানরা ভ্যান চালিয়ে, গার্মেন্সে কাজ করে, জনবিক্রি করে, দর্জির কাজ করে সৎ পথে সংসার পরিচালনা করে আসছে। দ্বিতীয় স্ত্রীর সন্তান ও সবার ছোট। সৎ মায়ের সন্তান হলেও ভাইয়েরা তাকে ছোট ভাইয়ের মতোই দেখে। তার বাবা মারা যাওয়ার পর যেন তার মাথার উপর আকাশ ভেঙ্গে পড়ে। কি করবে, কি খাবে। ভেবে পাচ্ছিল না। শুরু করে মানুষের বাড়ীতে কাজ করা। মানুষের বাড়ীতে জনবিক্রির কাজ করে মায়ের সাথে সংসার ভালোই চলছিল। হতদরিদ্র হওয়ার কারণে তাকে জমি আছে ঘর নেই প্রকল্প থেকে গত বছর ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হয়। সে দারিদ্রতার কারণে পড়ালেখা করতে পারেনি। বিভিন্ন মানুষের বাড়ীতে জনবিক্রি করে আসছিল । সে এখন কোটিপতি বলে এলাকার মানুষ জানে।
এ ধরনের কোটিপতি এখন শতাধিক বেকার ও ভবঘুরে যুবক। তাদের অপকর্ম ও সুরক্ষায় কাজ করে অন্তত ২০টি মোটর সাইকেল টিম। ওয়েলকামপার্টির সদস্যদের রোসানলে পড়ে এখন অনেক নিরিহ কৃষক মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানীর শিকার হচ্ছে। নিজেরা অপরাধ করেও দোষ চাপাচ্ছে অন্যের ঘাড়ে। এ কাজে সহযোগিতা করতে কথিত রাজনৈতিক নেতারা। থানা পুলিশ কিছু ওয়েলকামপার্টির সদস্যকে আটক করলেও পড়ে ছাড়া পেয়ে পুনরায় জড়িয়ে পড়েছে প্রতারনার কাজে। এ ধরনের প্রতারনার কাজে রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া, বাকসাডাঙ্গী, চরঘিকমলা, চরটাকাপোড়া, চরবিলধামু, সোনাকান্দর, মধুপুর, মরাবিলা, ঘিকমলাসহ আশপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষ। এছাড়াও এসব গ্রামের পাশেই মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার মহেশপুর, ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার ঢুমাইন এলাকায় প্রতারনাকারী চক্রের অবাধ বিচরণ।
সাধারণ মানুষের পাশাপাশি বিকাশ এজেন্টরাও প্রশাসনিক হয়রানীর শিকার হচ্ছে। আবার আইডি কার্ড জালিয়াতি করে বিকাশ এজেন্টের সাথে আতাত করে উঠিয়ে নিচ্ছে অর্থ। এ সকল প্রতারনাকারী চক্রের ফাঁদে পড়ে দেশের বিভিন্ন স্থানের মানুষ নিঃস্ব হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution