বেশি ভাড়া নিলেও গণপরিবহনে নেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই

0
238

মানিকগঞ্জে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই লোকাল গণপরিবহনগুলোতে। নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে যে যেভাবে পারছে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে যাত্রীদের কাছ থেকে। অসহায় গণপরিবহনের যাত্রীদের এ অবিচার মাথা পেতে নিচ্ছে লাঞ্ছিত হওয়ার ভয়ে।
জেলার উপর দিয়ে দণি-পশ্চিমাঞ্চলের প্রায় ২১টি অঞ্চলের মানুষ প্রতিনিয়ত যাতায়াত করে। করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর গণপরিবহন বন্ধ থাকায় পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের কথা বিবেচনা করে সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে গণপরিবহন চলাচলের নির্দেশনা দিলেও তা প্রথম দিকে মানলেও এখন ওই নির্দেশনাকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে নিজেদের তৈরি নিয়াম অনুযায়ী চলছে গণপরিবহন গুলো। দুটি আসনে এক জন করে যাত্রী নেওয়ার কথা, সেজন্য অতিরিক্ত ভাড়াও র্নিধারণ করে দেয় প্রশাসন। কিন্তু বাসের চালকরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করার পাশাপাশি আসনগুলোতে দু জন করে যাত্রী নিয়েই চলাচল করছে। যাত্রীরা দ্রুত প্রশাসনের হস্তপে কামনা করছেন কারণ একদিকে অতিরিক্ত ভাড়া অন্যদিকে কোনো গণপরিবহনে নেই স্বাস্থ্যবিধির বালাই।
সরেজমিন দেখা যায়, মানিকগঞ্জের লোকাল গণপরিবহনগুলোর হেলপার সুপারভাইজর গলা ফাটিয়ে যাত্রীদের ডেকে গাড়িতে তুলছে, যেখানে দুটি আসনে এক জন করে বসার কথা সেখানে তারা দুই জন করে বসাচ্ছেন। সরকার যে ভাড়া নির্ধারণ করে দিয়েছে দুটি আসনের জন্য তারা এখন একেকটি আসনের জন্য সেই ভাড়া আদায় করছে যাত্রীদের কাছ থেকে। গাড়িতে ওঠার সময় এবং প্রতিটি ট্রিপের পর জীবাণুনাশক ওষুধ দিয়ে স্প্রে করার কথা থাকলেও বাস্তবে তার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। যাত্রীদের আসন পরিপূর্ণ হওয়ার পর গাড়ির মাঝখানে ফাঁকা জায়গাটুকুও খালি রাখছে না চালকরা। কোনো যাত্রী ভুল করে প্রতিবাদ করে তবে তাকে গাড়ি থেকে নামিয়ে লাঞ্ছিত করেন গণপরিবহনের হেলপার ও সুপারভাইজাররা। মাঝে মাঝে প্রশাসন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করলেও কোনো লাভ হচ্ছে না, এক দিক দিয়ে জরিমানা করছে ভ্রাম্যমাণ আদালত আর তারা চলে গেলে পুনরায় আবার অতিরিক্ত ভাড়া ও যাত্রী বহন করছে চালকরা।
মানিকগঞ্জ জেলা যাত্রী পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি জাহিদুর রহমান বলেন, কোনো গাড়ির মালিক কিংবা চালক যদি সরকার নির্ধারিত ভাড়া ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে মহাসড়কে চলাচল করে তবে তার বিরুদ্ধে প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে। আমরা চাই প্রত্যেক গাড়ি যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করে এবং নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করে।
জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস বলেন, প্রতিনিয়ত আমাদের ভ্রাম্যমাণ আদালত স্বাস্থ্যবিধি না মানার অপরাধে ও অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে গাড়ির চালক এবং মালিকদের জরিমানা করছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here