1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন

‘দখলের অভিযোগ’ গোয়ালন্দে সরকারী জমি ৩ পক্ষের উত্তেজনা

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২ জানুয়ারি, ২০১৮
  • ৯৫১ Time View

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে সরকারী জমি’র মালিকানা দাবি ও দখল নিয়ে তিন পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে। এতে যেকোন সময় অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকা দেখা দিয়েছে। তবে ক্লাবের নামে সরকারী জমি অবৈধ দখলের অভিযোগ করেছে পৌর কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, গোয়ালন্দ পৌরসভার আওতাধীন ৬নং ওয়ার্ডের অন্তর্গত প্রধান সড়কের পাশে অবস্থিত শহীদ স্মৃতি ক্লাব ও পাঠাগার ঘরটি সম্প্রসারন করা নিয়ে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। জায়গাটির মালিকানা দাবিদারদের মধ্যে রয়েছে গোয়ালন্দ পৌরসভা, শহীদ স্মৃতি ক্লাব ও পাঠাগার এবং জমির দালিলিক মালিকগন। সোমবার সকালে এ নিয়ে তিন পক্ষের মধ্যে প্রচন্ড উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, গোয়ালন্দ পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের আওতাধীন প্রধান বাজার সংলগ্ন ৭৮ শতাংশের একটি বিশাল খাল রয়েছে। এর পশ্চিম পাশে উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যলয়, উত্তর পাশে গুড় বাজার ও পূর্বপাশে শহীদ স্মৃতি ক্লাব ও পাঠাগার অবস্থিত। ১৯৮৪ সালে স্থাপিত শহীদ স্মৃতি ক্লাব ও পাঠাগারটি কিছুদিন আগে হঠাৎ করে তাদের কার্যালয়টি দ্বিগুন পরিমান জায়াগা নিয়ে সম্প্রসারণের কাজ শুরু করে। এ নিয়ে পৌর কর্তৃপক্ষ ক্লাবকে নোটিশ দিয়ে কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। কিন্তু ক্লাব কর্তৃপক্ষ কাজ বন্ধ না রাখায় পৌরকর্তৃপক্ষ ২৪ ডিসেম্বর রেকার যন্ত্র নিয়ে ক্লাবের বর্ধিত অংশ অপসারন করতে আসেন। ক্লাবের সদস্যদের প্রতিরোধের মুখে অপসারন না করে পরবর্তীতে সমঝোতা না হওয়া পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখতে উভয় পক্ষ সম্মত হয়। এ বিষয়ে গত রোবাবার পৌরসভা কার্যালয়ে উভয় পক্ষ আলোচনায় বসলেও সমঝোতা হয়নি। এর পরদিন সোমবার সরেজমিন আলোচনায় বসে উভয় পক্ষ। এসময় সেখানে উপস্থিত হন জমির মালিকানা দাবিদাররা। তারা ক্লাবের নামে এ দখল পক্রিয়ার বিরোধীতা করেন।

এদিকে সেখানে জড়ো হন রিক্সা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জিন্নাহ মোল্লা, ব্যবসায়ী আবুল কালাম আজাদ, লিটন মিয়াসহ কয়েকশ ব্যাবসায়ী ও রিক্সা শ্রমিক। তারা পৌর মেয়রের কাছে দাবি করে বলেন, এত বড় বাজারে যানবাহন থেকে মালামাল লোড-আনলোডের জন্য কোন পার্কিং ইয়ার্ড নেই। নেই রিক্সা-ভ্যানের জন্য কোন স্ট্যান্ড। অথচ বিশাল এ খালটি একে একে দখল হয়ে যাচ্ছে। জায়গাটি ভরাট করে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় আনলে তার সুফল আমরা সবাই পাব।

এ ব্যাপারে খালের জমির মালিকানা দাবিদাদের পক্ষে মোঃ মোকছেদ আলী বিশ্বাস রাজবাড়ীবিডিকে জানান, এখানকার পুরো জায়গাটি তাদের। ২০০৪ সাল পর্যন্ত তারা জমির খাজনা পরিশোধ করে রেখেছে। এরপর থেকে সরকার খাজনা আদায় বন্ধ রেখেছে। আমরা এর বিরুদ্ধে সরকারের বিপক্ষে মামলা করেছি। যা এখনো চলমান। পৈত্রিক সূত্রে আমরা এই জমির মূল মালিক। তবে সরকার এখানে জনগুরুত্বপূর্ণ কোন কাজ করতে চাইলে আমরা সহযোগিতা করব। কোন অবৈধ দখল মেনে নেব না।

শহীদ স্মৃতি ক্লাব ও পাঠাগারের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলাউদ্দিন মোল্লা রাজবাড়ীবিডিকে জানান, ১৯৮৩ সাল থেকে এখানকার পুরো জায়গা সরকারী ভাবে ৯৯ বছরের জন্য ক্লাবের নামে পত্তন দেয়া হয়। কিন্তু এ সংক্রান্ত কাগজপত্র তারা হারিয়ে ফেলেছেন বলে তিনি জানান। জেলা প্রশাসকের রেকর্ড রুমে তার খোঁজ করলে তা পাওয়া যায়নি। ৮৮ সনের বন্যা সে কাগজপত্র নষ্ট হয়ে গেছে বলে তাদেরকে জানানো হয়েছে। তবে জায়গাটি পৌর কর্তৃপক্ষের নয়। তাই তারা কোন ভাবেই আমাদের বাধা দিতে পারে না।

ক্লাবের অপর সদস্য খন্দকার আব্দুল মুহিত হিরা বলেন, ‘পৌর কর্তৃপক্ষ সম্প্রসারণ কাজে বাঁধা দিলে ক্লাবের সদস্যরা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে গিয়েছিলাম। তিনিও বলেছেন পৌরসভা বাঁধা দিতে পারে না।’

এ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ পৌরসভার মেয়র শেখ মো. নিজাম রাজবাড়ীবিডিকে জানান, এই জায়গাটি সহ বাজারের বেশীর ভাগ জায়গাই সরকারী পেরিফেরিভুক্ত। আইন অনুযায়ী বাজার ব্যবস্থাপনা রয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে। এই বাজারের সম্প্রসারণের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়ায় বিশাল ওই খালটি ভরাটের জন্য পৌরকর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যে টেন্ডার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে। কিন্তু পৌর কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ক্লাবের নামে খালের অনেকটা জায়গা অবৈধ ভাবে দখল করা হয়েছে। কাজ বন্ধের নোটিশ দিলেও তারা আমলে নেয়নি।

গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবু নাসার উদ্দিন জানান, যতটুকু জেনেছি জায়গাটা সরকারী পেরিফেরি ভুক্ত। এ বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। ক্লাবের সদস্যদের কাছে আপনি বলেছেন পৌর কর্তৃপক্ষ বাঁধা দিতে পারে না এটা কি সঠিক? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি রাজবাড়ীবিডিকে বলেন, ‘এ ধরনের কোন কথা কোথাও বলিনি।’

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution