1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৩৮ অপরাহ্ন

ফরিদপুরে বরকত-রুবেলের ১২টি বাসে আগুন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
  • Update Time : শনিবার, ১২ মার্চ, ২০২২
  • ৬৬৩ Time View

ফরিদপুরে রহস্যজনক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় পুড়ে গেছে দুই হাজার কোটি টাকার অর্থপাচার মামলায় গ্রেফতার দুই ভাই বরকত-রুবেলের মালিকানাধীন সাউথ লাইন পরিবহনের ১২টি বাস। শনিবার রাত ১টার দিকে শহরের গোয়ালচামটে নতুন বাস টার্মিনালের পাশে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের অগ্নিনির্বাপক বাহিনী প্রায় ঘণ্টাখানেক চেষ্টা চালিয়ে রাত আড়াইটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে সক্ষম হয়। এর মধ্যেই বাসগুলো আগুনে পুড়ে যায়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দাউ দাউ করে বাসগুলোতে আগুন জ্বলতে দেখে লোকজন ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়। সারিবদ্ধভাবে খোলা জায়গায় রেখে দেয়া গাড়িগুলোতে রহস্যজনকভাবে একই সময়ে আগুন লাগে বলে তারা জানান। আগুনে এতোগুলা বাস পুড়ে যাওয়ার কারণ এখন পর্যন্ত জানতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস।
বাসগুলোর পাহারায় নিযুক্ত শেখ মোহাম্মদ আলী বলেন, রাতে তিনি প্রথমে দেখেন একটি বাসে আগুন লাগলো। এরপর চিৎকার দেয়ার পরে মানুষজন আসতে আসতেই ১০ মিনিটের মধ্যে অন্যান্য গাড়িগুলোতেও আগুন লেগে যায়। বাস মালিক সাজ্জাদ হোসেন বরকতের পক্ষ হতে তাকে বাস পাহারার জন্য নিযুক্ত করেছে বলে মোহাম্মাদ আলী জানান।
ফরিদপুরের কোতোয়ালি থানার ওসি এম. এ. জলিল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রাত ১টার দিকে বাসে আগুন লাগার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে। তিনি জানান, সেখানে ২২টি বাস রাখা ছিলো। এরমধ্যে ১২টি বাসেই আগুন লাগে। রাত আড়াইটা নাগাদ আগুন নিভিয়ে ফেলতে আমরা সক্ষম হই।
ফরিদপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক শিপলু আহমেদ জানান, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখে সবকয়টি বাসেই আগুন জ্বলছে। এরমধ্যে কয়েকটি বাস আংশিক পুড়েছে। আগুনের কারণ এখনো জানা যায়নি। এছাড়া কোনো দাহ্য পদার্থ দিয়ে আগুন ধরানো হয়েছে কিনা তাও বলতে পারছি না এই মুহূর্তে।
ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জামাল পাশা বলেন, এই নাশকতার সাথে কারা জড়িত সেটি এখনো সনাক্ত করা যায়নি। এ বিষয়ে থানায় মামলা হবে। আমরা তদন্ত করে দেখবো আসলেই কারা জড়িত এই নাশকতার সাথে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।
ফরিদপুরের সাউথ লাইন নামে পুড়ে যাওয়া ওই বাসগুলো অর্থপাচার মামলায় গ্রেফতার শহর আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকতের মালিকানাধীন।
বরকতের স্ত্রী সুরাইয়া পারভীন বলেন, ‘আমার স্বামী মানিলন্ডারিং মামলায় গ্রেফতারের পর গত বছর ২৫ ফেব্রুয়ারী আমাদের বাসসহ মোট ৫৫টি গাড়ি আদালতের নির্দেশে সিআইডি জব্দ করে। এর মধ্যে ১২টি বাস ফরিদপুরের গোয়ালচামট বিদুৎ অফিসের সামনে একটি শেডের নিচে রাখা ছিল। ওই জায়গাটি সম্প্রতি এক ব্যক্তি ২০ লাখ টাকায় বিক্রির পর গাড়িগুলো খোলাস্থানে সরিয়ে রাখে। মনে হচ্ছে শত্রুতা করে তারাই এ আগুন দিয়েছে। এই ঘটনায় কয়েক কোটি টাকার আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়লাম। এ বিষয় নিয়ে আমরা আদালতের দারস্থ হবো।’
উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৬ মে রাতে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় ৭ জুন রাতে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেফতার হন বরকত ও রুবেল সহ তাদের নয় সহযোগী। এরপর ঢাকার সিআইডি তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও অর্থপাচারের অভিযোগে দুই হাজার কোটি টাকা পাচারের মামলা করে কাফরুল থানায়। আদালতের নির্দেশে বাসগুলো জব্দ করে সেগুলো এখানে রাখা ছিলো। ব্যাপক আলোচিত অর্থপাচারের এ মামলায় বরকত ও রুবেল এখন কারাগারে। এই মামলায় গত ৫ মার্চ শুক্রবার রাতে ঢাকা থেকে গ্রেফতার হন সাবেক এলজিআরডি মন্ত্রী ও ফরিদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ভাই খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবর।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution