1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
শনিবার, ১৩ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪৪ পূর্বাহ্ন
Title :
রাজবাড়ীতে মাইক্রোবাসের চাপায় বাইসাইকেল আরোহীর মৃত্যু পাংশায় ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ ॥ নারীসহ আহত-৫ বালিয়াকান্দিতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে হিজড়াদের মধ্যে সংঘর্ষে ৫জন আহত রাজবাড়ীতে রাজু মেডিকেল কর্ণারকে জরিমানা পাঁচুরিয়ায় ভয়ভীতি দেখিয়ে গৃহবধুকে ধর্ষণের অভিযোগ সাংবাদিক লিটন চক্রবর্তীকে হয়রানীর প্রতিবাদে রাজবাড়ীতে মানববন্ধন মাদকসহ সকল অপরাধ নির্মূল করতে কাজ করছে জেলা পুলিশ -পুলিশ সুপার পুলিশকে তথ্য দিয়ে পুরুস্কার পেলেন গ্রাম পুলিশ রাম প্রসাদ রাজবাড়ীতে পদ্মায় বালু উত্তোলনকালে হামলায় একব্যাক্তি গুলিবৃদ্ধ রাজবাড়ীতে পাসপোর্ট অফিসের দালালদের হাতে মার খেলেন সেবা গ্রহিতা

রাজবাড়ীতে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার ॥
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০২২
  • ২৮৯ Time View

রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানগঞ্জ ইউনিয়নের ঘুঘুশাইল গ্রামে প্রলোভন দেখিয়ে এক শিশুকে একাধিকবার ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিশুটি স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী।
অভিযুক্তরা হলো আলেক মোল্লা। বাড়ি ঘুঘুশাইল গ্রামে। আলেক বিদ্যালয়ে ঝালমুড়ি-ফুচকা বিক্রি করে। তাঁর বাবার নাম গিয়াস উদ্দিন মোল্লা। সহযোগি কৃষি শ্রমিক মিন্টু বিশ^াসের বাবার নাম আয়েন উদ্দিন বিশ^াস।
বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিশু, ভূক্তভোগি, ভূক্তভোগির পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, আলেক ফুচকা-ঝালমুচি বিক্রি করে। এতে করে শিশুদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলে। ওই শিশুকে সে বিনা টাকায় খাইয়েছে। টাকা দিতে চেয়েছে। এরপর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে মুঠোফোনে পর্ণগ্রাফী দেখিয়েছে। এরপর কয়েক দিন তাকে ধর্ষণ করা হয়। সবশেষ শনিবার তাকে ধর্ষণ করা হয়। ধর্ষণ করার আগে তাকে পর্ণগ্রাফী দেখানো হয়।
ভূক্তভোগি শিশুটি জানায়, সে প্রথমে বুঝতে পারে নাই। তাকে ঘরে নিয়ে আটকে রাখা হয়। এরপর তাকে ফোনে খারাপ ভিডিও দেখানো হয়। ভিডিও দেখিয়ে বলে ‘আসো আমরাও এসব করি। আমি রাজি হইনি। তখন আমাকে চাকু দেখিয়ে ভয় দেখায়। এরপর আমার সঙ্গে খারাপ কাজ করে।’
শিশুটির মামা অভিযোগ করেন, আমার ভাগনি আমাদের বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করে। সে এবার চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে। আমার ভাগনিকে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়েছে। সবশেষ ঘটনা ঘটেছে তিন দিন আগে। প্রথমে এই কাজ করে মিন্টু। পরে এই কাজ করে আলেক সরদার।
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা গরীব মানুষ। আমার মায়ের শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ। কি করবো ভেবে পাচ্ছিলাম না। স্থানীয় কয়েকজন আমাদের সাহস দিয়েছেন। আমরা এই ঘটনার বিচারের দাবিতে থানায় মামলা দায়ের করবো।
বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, সে আমাদের সামনে দিয়ে ওকে নিয়ে গেছে। এরপর আমরা তাঁর ঘরে গিয়ে ছিলাম। আমরা তাকে ঘরের সামনে গিয়ে ডেকে ছিলাম। সে কিছু বলে নাই। এরপর টিফিনের ঘণ্টা পরে যাওয়ায় ক্লাসে চলে এসেছি। তাকে চাকু দেখিয়ে ভয় দেখিয়েছে। মেরে ফেলতে চেয়েছে। একারণে সে প্রথমে কিছু বলতে চায়নি। পরে বিকেলে তেতুল কুড়ানোর সময় আমাদের সব বলেছে।
ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মিন্টু বিশ^াস। তিনি বলেন, আমি ধর্ষণ করিনি। তবে টাকা দিয়েছি। ফোনে খারাপ ভিডিও দেখিয়েছি।
রাজবাড়ীর সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মাঈন উদ্দিন চৌধুরী বলেন, শিশুকে ধর্ষণের বিষয়টি আমি জানি না। এবিষয়ে কেউ থানায় কোন অভিযোগ করে নাই। অভিযোগ পেলে এবিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

 




Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution