1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৩২ অপরাহ্ন

রাজবাড়ী মর্গে এখনো লাশ কাটা হয় হাতুড়ি-বাটাল দিয়ে

স্টাফ রিপোর্টার ॥
  • Update Time : শনিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৯৯ Time View

ডিজিটাল এই যুগেও রাজবাড়ী জেলার একমাত্র মর্গের অবস্থার উন্নতি ঘটেনি। এখনো এই মর্গে নানা অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে চলছে মৃতদের ময়নাতদন্ত। মরদেহ কাটার কাজে এখনো হাতুড়ি-বাটালই সম্বল। অথচ আধুনিক মর্গগুলোতে ইলেকট্রিক ‘স’ (করাত) ব্যবহার করা হয়।
এখানে দীর্ঘদিন ধরে কোনো ডোম নেই। ফলে পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের দিয়ে মরদেহ কাটা হয়। এখানে নমুনা সংরক্ষণের কোনো সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা নেই। এতে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেতে স্বাভাবিকের চেয়ে সময় লাগছে বেশি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, রাজবাড়ীতে মরদেহের নমুনা সংরক্ষণ ব্যবস্থাপনা আরো উন্নত হওয়া দরকার।
জানাগেছে, জেলার একমাত্র মর্গটি রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দূরে শহরের ড্রাই আইস ফ্যাক্টরি এলাকায় অবস্থিত। মর্গটিতে নেই ভেন্টিলেশন ও পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা। নেই চিকিৎসকদের বসার আলাদা কক্ষ। পানির পাম্প চুরির পর আর তা কেনা হয়নি। এ কারণে সেখানে নেই পর্যাপ্ত পানির ব্যবস্থা। হাতুড়ি-বাটাল দিয়েই চলে মরদেহ কাটার কাজ। ডোমের পদটিও দীর্ঘদিন শূন্য। ফলে পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের দিয়ে মরদেহ কাটানো হয়। তবে মর্গে লাশ সংরক্ষণের জন্য একটি মরচুয়ারি কুলার (মৃতদেহ সংরক্ষণের ফ্রিজ) আছে, কিন্তু নেই কোনো নৈশ প্রহরী। রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের দোতলার ছোট্ট একটি কক্ষে ভিসেরা (নমুনা) রাখা হয়। নমুনা পরীক্ষাগারে দ্রুত পাঠানোর কথা থাকলেও তা সঠিকভাবে হচ্ছে না।
রাজবাড়ী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাডভোকেট উজির আলী শেখ বলেন, ‘আমাদের রাজবাড়ীতে মর্গে যে ভিসেরা আলামত রাখা হয়, সেগুলোর অবস্থা আরো উন্নত করা দরকার। আলামত তাৎক্ষণিকভাবে পরীক্ষাগারে পাঠানো দরকার।
রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এম এম শাকিলুজ্জামান বলেন, মামলার তদন্তে পোস্টমর্টেম গুরুত্বপূর্ণ হলেও রাজবাড়ীতে তা পেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়। এ কারণে বিঘিœত হয় তদন্ত। রাজবাড়ী মর্গে ডোমের পদ শূন্য। অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হলেও এটাই বাস্তবতা। একজন ক্লিনারকে দিয়ে ওই সব কাজ করানো হচ্ছে।
রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডা. ইব্রাহিম টিটোন বলেন, রাজবাড়ীর যে মর্গ রয়েছে, তা হাসপাতাল থেকে প্রায় দেড় থেকে দুই কিলোমিটার দূরে। রাজবাড়ী সদর হাসপাতাল ক্যাম্পাসে ২৫০ শয্যার নির্মাণাধীন কাজ শেষ হলে সেখানে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত মর্গ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution