1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২, ০৪:১৪ পূর্বাহ্ন
Title :
গোয়ালন্দের পূজামন্ডপ পরিদর্শন ও উপহার সামগ্রী দিলেন পুলিশ সুপার পাংশায় ডিসি-এসপি’র মন্দির পরিদর্শন সহজ পাঠ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের গোয়ালন্দে ওসি’র ফুলেল শুভেচ্ছা গোয়ালন্দে রেলওয়ে পুলিশ সুপারের দূর্গা মন্দির পরিদর্শন গোয়ালন্দে পিছিয়ে পড়া শিশুদের অংশগ্রহনে প্রীতি ফুটবল খেলার আয়োজন রাজকীয় বিদায় দিলেন পাংশা থানার কনস্টেবলকে দৌলতদিয়া ঘাট আধুনীকায়ন প্রকল্প ॥ হয়নি জমি অধিগ্রহন, তবুও নভেম্বরে কাজ শুরুর আশা কালুখালীতে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন গোয়ালন্দে ঘরের বেড়ায় ঢেড়স চাষ, মিটাচ্ছে পারিবারিক চাহিদা রাজবাড়ীতে পাট কাঠি বিক্রি করেও লাভবান চাষিরা

চীনা উপকূলে নিখোঁজ রাজবাড়ীর সজীবসহ ২ বাংলাদেশির সন্ধান মেলেনি দশ দিনেও

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৮
  • ১০৮৬ Time View

চীনের সমুদ্র উপকূলে ইরানি তেলবাহী ট্যাংকার ও জাহাজের সংঘর্ষের দশ দিন পেরিয়ে গেলেও ওই দুর্ঘটনায় নিখোঁজ রাজবাড়ীর সজীব মৃধাসহ দুই বাংলাদেশি নাবিকের কোনো সন্ধান মেলেনি।

নিখোঁজ দুই বাংলাদেশি হলেন রাজবাড়ী জেলা সদরের বরাট ইউনিয়েনর মতিয়াগাছি গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত রেলওয়ে কর্মচারী মাজেদ আলী মৃধার ছেলে মো. সজীব আলী মৃধা (২৬) ও চট্টগ্রাম জেলার মীরসরাই উপজেলার মিঠানালা ইউনিয়নের রাঘবপুর গ্রামের সাদেক আহমেদের ছেলে মো. হারুন-অর-রশিদ (৩৭)।গত ৬ জানুয়ারি রাতে ‘দি সানচি’ নামের তেলবাহী ট্যাংকার ইরান থেকে তেল বহন করে দক্ষিণ কোরিয়ার দিকে যাচ্ছিল। কিন্তু পূর্ব চীন সাগরের সাংহাই উপকূল থেকে ২৬৯ কিলোমিটার দূরে হং কংয়ের সিএফ ক্রিসটাল জাহাজের সঙ্গে সানচির সংঘর্ষ হয়। এ দুর্ঘটনার পর ওই ট্যাংকারে থাকা ৩০ জন ইরানি এবং দুই বাংলাদেশি সজীব ও হারুন নিখোঁজ হন। পরে সমুদ্রে ভাসমান অবস্থায় নিখোঁজ তিনজনের মরদেহ পাওয়া যায়।

এদিকে দুর্ঘটনায় সজীবের নিখোঁজের খবরে তার পরিবারে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। একমাত্র ছেলেকে হারিয়ে শোকে পাথর হয়ে গেছেন বাবা মাজেদ আলী মৃধা ও মা জোসনা বেগম। একমাত্র ভাইকে হারিয়ে শোকে কাতরাচ্ছেন সজীবের দুই বোন জিনিয়া আক্তার ও শাবনাজ আক্তার। নিখোঁজ অপর নাবিক হারুন-অর-রশিদের পরিবারেও চলছে শোকের মাতম।

রেলওয়েতে চাকরির সুবাদে দিনাজপুর জেলার পার্বতীপুরে থাকতেন সজীবের বাবা। গত বছর ধরে তিনি অবসরে রয়েছেন। সজীব পার্বতীপুরের জ্ঞানাঙ্কুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০০৮ সালে জিপিএ-৫ পেয়ে এসএসসি পাশ করে। এরপর সে সৈয়দপুর ক্যান্টনমেন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ২০১০ সালে আবারও জিপিএ-৫ পেয়ে এইচএসসি পাশ করে। ২০১৩ সালে সে বাংলাদেশ মেরীন একাডেমী থেকে ব্যাচেলর অব মেরিটাইম সায়েন্স (বিএমএস) ডিগ্রি অর্জন করে। ২০১৪ সাল থেকে সজীব দুইটি বাল্ক ক্যারিয়ার ও দুইটি ওয়েল ট্যাংকার জাহাজে কাজ করেছে। সর্বশেষ সে ২০১৭ সালের ১৭ নভেম্বর জামালপুরের এস.কে ইঞ্জিনিয়ারিং এজেন্সীর মাধ্যমে ন্যাশনাল ইরানিয়ান ট্যাংকার কোম্পানি-এনআইটিসির ‘দি সানচি ট্যাংকারে’ থার্ড অফিসার হিসেবে যোগদেন।

দুর্ঘটনায় নিখোঁজ ৩২ জনের মধ্যে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে সজীবের মরদেহ আছে কি না তা সজীবের বাবা ও বোনের ডিএনএন মিলিয়ে সনাক্ত করা হবে। আজ (১৭ জানুয়ারি) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সজীবের বাবা ও বোনের ডিএনএ পরীক্ষা করা হবে। এরপর ওই রিপোর্ট বাংলাদেশ নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চীনের পরিবহন মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution