1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ০২:৫৯ অপরাহ্ন

প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে আজ বসছেন চার মন্ত্রী

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
  • ৮৪০ Time View

একের পর এক উদ্যোগ নেওয়া হলেও পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস দৃশ্যত অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে। এ অবস্থায় সরকারের পক্ষে সমন্বিত উদ্যোগ নিতে প্রথমবারের মতো বৈঠকে বসছেন চার মন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও আইসিটি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলীও বৈঠকে অংশ নেবেন।

আজ মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে এই তিন মন্ত্রণালয়েরই গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা এই বৈঠককে ‘হাইভোল্টেজ সভা’ বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি জানান, এ সভায় নেওয়া সিদ্ধান্ত ভবিষ্যতে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সক্ষম হবে বলে তারা মনে করছেন। বৈঠকে সরকারের গুরুত্বপূর্ণ ১৮টি সংস্থার প্রধানদেরও ডাকা হয়েছে।

১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া এসএসসি পরীক্ষায় এখন পর্যন্ত একটি বাদে সবক’টি বিষয়ের প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সর্বশেষ গতকাল সোমবারও এসএসসির জীববিজ্ঞান পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, গত কয়েক দিনে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া বেশ কিছু সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে করণীয় বিষয়ের একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আজকের সভায় তা পেশ করা হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দু’জন অতিরিক্ত সচিব জানান, এ সভায় ‘কঠোর’ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। প্রয়োজনে প্রশ্নপত্র ফাঁসকারীদের ধরতে পুলিশ, র‌্যাবসহ বিভিন্ন বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে ‘কম্বিং’ অপারেশন চালানোর সিদ্ধান্তও হতে পারে।

তারা জানান, সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ যেসব সংস্থার প্রধানদের আজকের সভায় ডাকা হয়েছে, এসব সংস্থা কোনো না কোনোভাবে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, মুদ্রণ, বিতরণ ও নিরাপত্তা বিধানের কাজে সম্পৃক্ত। এ বৈঠকে প্রশ্ন ফাঁস ঠেকানো ছাড়াও কীভাবে সুষ্ঠুভাবে চলমান এসএসসি এবং আসন্ন এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষাসহ অন্যান্য পাবলিক পরীক্ষার আয়োজন করা যায়, তার একটি রূপরেখা তৈরি করা হবে।

একটি সূত্র জানায়, চলমান এসএসসিসহ বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, তাদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির সিদ্ধান্তও নেওয়া হবে। ফলে আজকের বৈঠক নিয়ে মন্ত্রণালয়, বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড এবং বিজি প্রেসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নানা সিন্ডিকেটের সদস্যরা আতঙ্কে রয়েছেন।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মাধ্যমিক) চৌধুরী মুফাদ আহমেদ বলেন, শুধু শিক্ষা মন্ত্রণালয় নয়, একটি পাবলিক পরীক্ষা আয়োজনের সঙ্গে একাধিক মন্ত্রণালয়ের সম্পৃক্ততা রয়েছে। শিক্ষা বোর্ড থেকে প্রশ্নপত্র বিজি প্রেসে যাওয়ার পর সেখান থেকে ফাঁস হলে তার দায় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের। আর ট্রেজারি থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁস হলে তার দায় মাঠ পর্যায়ে জেলা বা উপজেলা প্রশাসনের। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে এ বিষয়ে মাঠ প্রশাসনকে নোটিশ করতে হবে। অন্যদিকে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস হলে তা ঠেকানোর দায়িত্ব আইসিটি মন্ত্রণালয়ের।

তিনি বলেন, প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সমন্বয় থাকা খুব জরুরি। অন্যথায় পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো কোনোভাবেই সম্ভব নয়। এ কারণেই আগামী পরীক্ষাগুলো সুষ্ঠুভাবে আয়োজনের লক্ষ্যে সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের আমন্ত্রণ জানিয়ে এই সমন্বয় সভা ডাকা হয়েছে। সেখানে প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে বিভিন্ন উপায় খুঁজে বের করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution