1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ০৯:০৫ পূর্বাহ্ন
Title :
মরহুম কাজী হেদায়েত হোসেনের ৪৭ তম শাহাদাত বার্ষিকী পালন রাজবাড়ীতে প্রকাশ্যে ছাত্রলীগ নেতাকে লক্ষ্য করে গুলি ও যুবককে কুপিয়ে জখম রাজবাড়ীর শিক্ষার্থীদের মাঝে গাছের চারা বিতরণ ‘দূস্কৃতিকারী যারাই হোক ছাড় দেওয়া হবে না’ -জিল্লুল হাকিম এমপি সারাদেশে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে রাজবাড়ীতে যুবলীগের বিক্ষোভ কথা রাখছে না বিদ্যুত বিভাগ গোয়ালন্দে ৩৫০০ দূর্বল শিক্ষার্থীর জন্য বিশেষ ক্যাচ-আপ ক্লাবের যাত্রা শুরু বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ রেল জাদুঘর এখন রাজবাড়ীতে, দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভির রাজবাড়ীতে ৫১ জন দুস্থ ও তৃতীয় লিঙ্গের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ খালেদা জিয়ার জন্মবার্ষিকী ও রোগমুক্তি কামনায় রাজবাড়ীতে দোয়া মাহফিল

রাজবাড়ীতে শ্বশ্মান নির্মানকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০১৯
  • ৬৯৯ Time View

আল মামুন আরজু ॥
রাজবাড়ীর চন্দনী ইউনিয়নের জৌকুরা এলাকায় সার্বজনীন শ্বশ্মান নির্মানকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি হয়েছে চাপা উত্তেজনা। এলাকায় বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা।
শ্বশ্মানের জমি নিয়ে রয়েছে বিরোধ। শ্বশ্মান নির্মানে প্রতিবেশী মুসলিম সম্প্রদায়ের কয়েকশত বাসিন্দাদের রয়েছে ঘোর আপত্তি। শ্বশ্মানের জমির মালিকের দাবী এ অঞ্চলে বসবাসরত প্রায় ৪ শত হিন্দুর নেই কোন দাহ করার সু ব্যাবস্থা। উভয় সংকটে স্থানীয় জন প্রতিনিধিরা। সুরাহার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান।
বৃহস্পতিবার সকালে সরোজমিন জৌকুড়া এলাকায় গিয়ে দেখাযায়, মাত্র তিন শতাংশ জমির উপর নির্মিত হচ্ছে জৌকুরা সার্বজনিন শ্বশ্মান ঘর। যার নির্মান কাজ এখন বন্ধ রয়েছে। নির্মানকে কেন্দ্র করে হিন্দু ও মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকের মধ্যে বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা। স্থানীয়রা জানান, এখনই এর সমাধান হওয়া দরকার, না হলে যে কোন সময় অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে পারে।
এ শ্বশ্মান ঘর নির্মিত জায়গার চারপাশের জমির মালিক অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোঃ জালাল উদ্দিন মন্ডল বলেন, আমি এখানে ১৯৭১ সালের পর থেকে পর্যায়ক্রমে প্রায় ১ শত ২৩ শতাংশ জমি ক্রয় করেছি। এ জমির মাঝখানে একটি মঠ অবস্থিত ছিল। যার জন্য জমির অংশিদাররা ৩ শতাংশ জমি বিক্রয় করে নাই। আমিও বিএস রেকর্ডের সময় দাগকেটে (আমার জমির মাঝখানে হলেও) রেকর্ড করতে সহযোগিতা করি। এখন সুমন কুন্ডু সেটাকে সার্বজনিন শ্বশ্মান বানাতে চাচ্ছে।
শ্বশ্মান প্রতিবেশী সোহরাব আলী খান বলেন, এ শ্বশ্মানের ৫০ গজের মধ্যেই রয়েছে ১০/১২ টি মুসলিম পরিবার, এখানে একটি মানুষ দাহ করার সময় যে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয় এটা পরিবেশ বান্ধব নয়। যে কারনে আমাদের রয়েছে ঘোর আপত্তি। এ ছাড়াও এই শ্বশ্মানের মাত্র তিন শতাংশ জমি যার পুরোটাই ঘর নির্মান হচ্ছে একটি মানুষ দাহ করতে যে মানুষ আসবে তাদের দাড়ানো বা বসার কোন যায়গা নাই। এ শ্বশ্মানে ঢোকার কোন পথ নেই। শ্বশানে আসতে হবে পাশের জমির মালিক জালাল মাস্টারের জমির উপর দিয়ে। যে কারনে আমাদের মনে হচ্ছে এটা উদ্দেশ্য প্রনোদিত।
এদিকে শ্বশ্মান নির্মাতা শুজিৎ কুমার কুন্ডু সুমন বলেন, এই জায়গাটার পুরোটাই এক সময় আমাদের ছিল, আমাদের পুর্ব পুরুষরা সব জমি বিক্রয় করলেও মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় বিহারীদের গুলিতে এখানেই আত্মহুতি দেয় রমনী মহন কুন্ডু ও বিমল চন্দ্র কুন্ডু। যাদের এখানেই দাহ করে মঠ তৈরি করে রাখা হয়। আমি এ পরিবারের উত্তসূরি হিসাবে তাদের স্মৃতিকে ধরে রাখতে ও এ অঞ্চলের প্রায় ৪ শত হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের শেষকৃত্য সম্পাদন করতে ২০০১ সালে এ জমিটি জৌকুরা সার্বজনিন শ্বশ্মানের নামে ওয়াকফ করে দেই। অতি সম্প্রতি জেলা পরিষদ থেকে কিছু অনুদান পেয়ে স্থ্যানীয়দের সহযোগিতায় এ শ্বশ্মান ঘরটি নির্মান করছি। জালাল মন্ডল নির্মানের প্রথমে বাধা না দিলেও এখন নির্মানের শেষ পর্যায়ে এসে বাধার সৃষ্টি করেছে। যা উদ্দেশ্য প্রণোদিত।
স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড সদস্য ও ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ফয়সাল আহম্মেদ চান্দু বলেন,
এ স্থানে দীর্ঘ কাল থেকেই হিন্দুদের মৃতদেহ দাহ হয়ে আসছে। কেহ বাধা দেয়নাই। এখন এখানে একটি শ্বশ্মান ঘর নির্মান করতে গেলে জনৈক জালাল মন্ডল শ্বশ্মানের মধ্যে তার জমি আছে বলে বাধার সৃষ্টি করে। তবে আশা করছি অচিরেই উভয় পক্ষের সন্তষ্টির মধ্যেই একটি সমাধানে আসতে পারবো।
চন্দনী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কে এম সিরাজুল আলম চৌধুরী বলেন, আমি এ বিষয়টি অবগত হয়েছি। বিষয়টি অত্যান্ত স্পর্সকাতর হওয়ায় প্রথম পর্যায়ে স্থ্যানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিদের উপর বিষয়টি সুরাহার জন্য দায়িত্ব দিয়েছি।

 




Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution