1. jitsolution24@gmail.com : Rajbaribd desk : Rajbaribd desk
সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ১০:২৬ অপরাহ্ন
Title :
গোয়ালন্দ উপজেলা চেয়ারম্যানের উদ্যোগে ২ কিলোমিটার রাস্তা নির্মান কাজ শুরু গোয়ালন্দে দুই দিনব্যাপী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন ফের নারায়ণগঞ্জের মেয়র হলেন রাজবাড়ীর পুত্রবধু আইভী ১৬ দিন পর গোয়ালন্দে টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে বই বিতরন শুরু দৌলতদিয়ায় নিখোঁজের ৩ মাস পর মামালা ॥ কথিত স্বামীসহ আসামি ৩ জন প্রবাসীর স্ত্রীকে নিয়ে উধাও আইনজীবী ॥ আদালতে মামলায় গ্রেপ্তারী পরোয়ানা বালিয়াকান্দিতে বাবার বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ বালিয়াকান্দিতে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু রাজবাড়ীতে নবাগত জেলা প্রশাসকের গনমাধ্যমকর্মীদের সাথে মতবিনিময় প্রধান বিচারপতির সাথে রাজবাড়ীর আইনজীবীদের সৌজন্য সাক্ষাৎ

কলাগাছের শহীদ মিনারে ফুল দিল শিশুরা

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
  • ৭৪৬ Time View

সোহেল রানা ॥
অমর একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালি জাতির কাছে অবিস্মরণীয় এক দিন। ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে জীবন দিয়েছিলেন সালাম, বরকত, রফিক, শফিক, জব্বার। তাই দিনটিকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করতে শহীদ মিনারে ফুল দিতে হাজির হয় সকল শ্রেণিপেশার মানুষ। বাদ থাকেনা কোমলমতি শিশুরাও। তাই দেশের সকল শহীদ মিনার নানা রঙে সাজানো হয়। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিজ নিজ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।
রাজবাড়ীর জেলার পাংশা উপজেলার কসবামাজাইল ইউনিয়নের দীঘলহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি ১৯৭৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও একুশে ফেব্রুয়ারি পালনের জন্য আজ অবধি কোন শহীদ মিনার নির্মিত হয়নি। তাই এবছর এ বিদ্যালয়ের ২১২ জন কোমলমতি শিক্ষার্থী ও কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ কলাগাছ দিয়ে বানানো শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।
বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানায়, আমাদের বিদ্যালয়ে কোন শহীদ মিনার নাই। তাই আমরা কলাগাছ দিয়ে শহীদ মিনার বানিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছি।
দীঘলহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রথীন্দ্রনাথ চূর্ণকার জানান, মহান একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রতিবছর সরকারি ভাবে পালন করা হয়। দিবসটি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই পালন করা হয়ে থাকে। সে লক্ষ্যে আমরাও প্রতিবছর দিবসটি পালন করে থাকি। কিন্তু প্রাচীন এই বিদ্যালয়টিতে কোন শহীদ মিনার না থাকায় প্রতিবছর অস্থায়ী ভাবে শহীদ মিনার বানিয়ে দিবসটি পালন করা হয়। তিনি বিদ্যালয়ে একটি শহীদ মিনার স্থাপনের কথা বলেন। শহীদ মিনারটি নির্মিত হলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সম্পর্কে আরো অনেক কিছু জানতে পারবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design by: JIT Solution